সৈয়দপুর ০৫:৪৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ২২ জুন ২০২৪, ৮ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আন্তর্জাতিক কোরআন প্রতিযোগিতায় প্রথম হাফেজ তাকরিম

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১০:০০:৩৪ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৫ এপ্রিল ২০২৩ ৬০ বার পড়া হয়েছে

আন্তর্জাতিক কোরআন প্রতিযোগিতার সমাপনী দিনে পুরুষ্কার ও সম্মাননা গ্রহণ করছেন হাফেজ সালেহ আহমদ তাকরিম

চোখ২৪.নেট অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

অনলাইন ডেস্কঃ দুবাই আন্তর্জাতিক কোরআন প্রতিযোগিতায় প্রথম স্থান অর্জন করেছে বাংলাদেশর সালেহ আহমেদ তাকরিম। স্থানীয় সময় মঙ্গলবার (৪ এপ্রিল) দুবাই এক্সপো সিটির আল-ওয়াসাল প্লাজায় অনুষ্ঠিত বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানে শেখ মুহাম্মদ বিন রশিদ বিন মুহাম্মদ রশিদ আলে-মাকতুম বিশ্বজয়ী হাফেজ তাকরিমের হাতে পুরস্কার ও সম্মাননা তুলে দেন।

গত ২৪ মার্চ থেকে শুরু হয় দুবাই আন্তর্জাতিক কোরআন প্রতিযোগিতার ২৬তম পর্ব। প্রতিযোগিতায় ২য় স্থান অর্জন করে ইথিওপিয়ার আব্বাস হাদি উমর ও ৩য় স্থান অর্জন করে সৌদি আরবের খালিদ সুলাইমান সালিহ আল-বারকানি। যৌথভাবে ৪র্থ স্থান অর্জন করে ক্যামেরুনের নুরুদ্দিন ও ইন্দোনেশিয়ার ফাতওয়া হাদিস মাওলানা। ৬ষ্ঠ স্থান অর্জন করে কেনিয়ার আবদুল আলিম আবদুর রহিম মুহাম্মদ হাজি। যৌথভাবে ৭ম স্থান অর্জন করে সিরিয়ার মুহাম্মদ হাজ আসআদ ও ইয়েমেনের মুহাম্মদ আবদুহু আহমদ কাসিম। যৌথভাবে ৯ম স্থান অর্জন করে ব্রুনাইয়ের আবদুল আজিজ বিন নুর নাসরান ও মরক্কোর হামজা মুসতাকিম।

আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতার সমাপনী দিনে স্বাগত বক্তব্য দেন আয়োজক সংস্থার উপ-প্রধান ড. সায়িদ আবদুল্লাহ হারিব। এ সময় বর্ষসেরা ইসলামী ব্যক্তিত্ব হিসেবে সম্মাননা দেওয়া হয় আল-আজহার বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান শায়খ ড. আহমদ ওমর হাশিমকে। তা ছাড়া প্রতিযোগিতার বিচারক প্যানেলে দায়িত্ব পালন করা বিশ্বের খ্যাতিমান কোরআন বিশেষজ্ঞদেরও বিশেষ সম্মাননা দেওয়া হয়। তারা হলেন- সৌদি আরবের ড. আহমদ বিন হামুদ, আমিরাতের ড. সালিম আল-দাওবি, বাংলাদেশের শায়খ শুয়াইব মুজিবুল হক, পাকিস্তানের ড. আহমদ মিয়া থানভি, মরক্কোর শায়খ আবদুল্লাহ আইশ, মিসরের জামাল ফারুক।

এর আগে গত বছর মার্চে ইরানে অনুষ্ঠিত কোরআন প্রতিযোগিতায় প্রথম এবং সেপ্টেম্বরে মক্কায় অনুষ্ঠিত কোরআন প্রতিযোগিতায় তৃতীয় স্থান অধিকার করে তাকরিম।

সালেহ আহমদ তাকরিমের বাড়ী টাঙ্গাইলের নাগরপুর থানার ভাদ্রা গ্রামে। তার বাবার নাম হাফেজ আব্দুর রহমান। তাকরিম ঢাকার মারকাযু ফয়জিল কুরআন আল ইসলামী মাদরাসার কিতাব বিভাগের ছাত্র।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য


আন্তর্জাতিক কোরআন প্রতিযোগিতায় প্রথম হাফেজ তাকরিম

আপডেট সময় : ১০:০০:৩৪ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৫ এপ্রিল ২০২৩

অনলাইন ডেস্কঃ দুবাই আন্তর্জাতিক কোরআন প্রতিযোগিতায় প্রথম স্থান অর্জন করেছে বাংলাদেশর সালেহ আহমেদ তাকরিম। স্থানীয় সময় মঙ্গলবার (৪ এপ্রিল) দুবাই এক্সপো সিটির আল-ওয়াসাল প্লাজায় অনুষ্ঠিত বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানে শেখ মুহাম্মদ বিন রশিদ বিন মুহাম্মদ রশিদ আলে-মাকতুম বিশ্বজয়ী হাফেজ তাকরিমের হাতে পুরস্কার ও সম্মাননা তুলে দেন।

গত ২৪ মার্চ থেকে শুরু হয় দুবাই আন্তর্জাতিক কোরআন প্রতিযোগিতার ২৬তম পর্ব। প্রতিযোগিতায় ২য় স্থান অর্জন করে ইথিওপিয়ার আব্বাস হাদি উমর ও ৩য় স্থান অর্জন করে সৌদি আরবের খালিদ সুলাইমান সালিহ আল-বারকানি। যৌথভাবে ৪র্থ স্থান অর্জন করে ক্যামেরুনের নুরুদ্দিন ও ইন্দোনেশিয়ার ফাতওয়া হাদিস মাওলানা। ৬ষ্ঠ স্থান অর্জন করে কেনিয়ার আবদুল আলিম আবদুর রহিম মুহাম্মদ হাজি। যৌথভাবে ৭ম স্থান অর্জন করে সিরিয়ার মুহাম্মদ হাজ আসআদ ও ইয়েমেনের মুহাম্মদ আবদুহু আহমদ কাসিম। যৌথভাবে ৯ম স্থান অর্জন করে ব্রুনাইয়ের আবদুল আজিজ বিন নুর নাসরান ও মরক্কোর হামজা মুসতাকিম।

আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতার সমাপনী দিনে স্বাগত বক্তব্য দেন আয়োজক সংস্থার উপ-প্রধান ড. সায়িদ আবদুল্লাহ হারিব। এ সময় বর্ষসেরা ইসলামী ব্যক্তিত্ব হিসেবে সম্মাননা দেওয়া হয় আল-আজহার বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান শায়খ ড. আহমদ ওমর হাশিমকে। তা ছাড়া প্রতিযোগিতার বিচারক প্যানেলে দায়িত্ব পালন করা বিশ্বের খ্যাতিমান কোরআন বিশেষজ্ঞদেরও বিশেষ সম্মাননা দেওয়া হয়। তারা হলেন- সৌদি আরবের ড. আহমদ বিন হামুদ, আমিরাতের ড. সালিম আল-দাওবি, বাংলাদেশের শায়খ শুয়াইব মুজিবুল হক, পাকিস্তানের ড. আহমদ মিয়া থানভি, মরক্কোর শায়খ আবদুল্লাহ আইশ, মিসরের জামাল ফারুক।

এর আগে গত বছর মার্চে ইরানে অনুষ্ঠিত কোরআন প্রতিযোগিতায় প্রথম এবং সেপ্টেম্বরে মক্কায় অনুষ্ঠিত কোরআন প্রতিযোগিতায় তৃতীয় স্থান অধিকার করে তাকরিম।

সালেহ আহমদ তাকরিমের বাড়ী টাঙ্গাইলের নাগরপুর থানার ভাদ্রা গ্রামে। তার বাবার নাম হাফেজ আব্দুর রহমান। তাকরিম ঢাকার মারকাযু ফয়জিল কুরআন আল ইসলামী মাদরাসার কিতাব বিভাগের ছাত্র।