সৈয়দপুর ০৬:৫১ অপরাহ্ন, শনিবার, ২২ জুন ২০২৪, ৮ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

গ্রামীণ রাস্তা সংস্কারে অনিয়মঃ ধুলো মাটির উপর চলছে কার্পেটিং

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৬:৫৪:৪৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২ ১৩ বার পড়া হয়েছে
চোখ২৪.নেট অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ নীলফামারীর সৈয়দপুর উপজেলার বোতলাগাড়ি ইউনিয়ন এর সড়ক সংস্কারে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। তড়িঘড়ি করে ধুলো আর মাটির উপরই চলছে কার্পেটিং এর কাজ। এর ফলে কার্পেটিং এর ২৪ ঘন্টার মধ্যেই সংস্কার করা সড়কের পাথরসহ অন্যান্য উপকরণ উঠে যাচ্ছে।

সৈয়দপুর উপজেলার এলজিইডি অফিস মারফত জানা যায়, ২১-২২ অর্থ বছরে উপজেলার বোতলাগাড়ি ইউনিয়ন সড়ক সংস্কারে রেলওয়ে কারখানার ব্রিজ সপ হতে পোড়ার হাট ডিসি মোড় পর্যন্ত ৭০ লাখ ৪২ হাজার ৩৮৫ টাকা বরাদ্দে ৩ কিলোমিটার পাকা করন সড়কের সংস্কার শুরু করেন দিশা ট্রেডার্সের স্বত্বাধিকারী ঠিকাদার আফতাব উদ্দিন। কাজটি ২০২১ অর্থ বছরে জুন থেকে শুরু করে ২০২২ এর জুন মাসে শেষ হওয়ার কথা। কিন্তু ওই ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান নির্ধারিত সময়ে সড়কের উপরের অংশ উপরে ফেলেন। এরপর দীর্ঘদিন অতিক্রমের পর সেপ্টেম্বর মাসের ২২ তারিখ তড়িঘড়ি কার্পেটিং এর শুরু করেন।

স্হানীয়রা বলেন কার্পেটিং করার আগে সড়কের ধুলো মাটি পরিস্কার করার কথা। কিন্তু ওই ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান তা না করে তড়িঘড়ি কার্পেটিংয়ের কাজ অব্যাহত রেখেছেন।

জয়নাল আবেদীন নামের এক ব্যাক্তি জানান, সড়ক সংস্কার কাজ অনিয়ম হলে যাতে কেউ প্রতিবাদ করতে সাহস না পায় এজন্য ওই ইউনিয়ন এর ৪ নং ওয়ার্ড মেম্বার বাবলুর দারা সংস্কার কাজ করানো হচ্ছে। তিনি বলেন যে মাপের পাথর ও পিচ দেয়ার কথা তা দেয়া হচ্ছে না। এরফলে একদিকে চলছে কার্পেটিংয়ের কাজ অন্যদিকে পথচারীর পায়ের ভারে তা উঠে যাচ্ছে।

স্হানীয়রা জানান, ঠিকাদার আফতাব হোসেন সড়কের কাজে দুর্নীতি ও অনিয়ম করতেই বাবলু মেম্বারের দারা কাজ করাচ্ছেন। তারা বলেন সংস্কার কাজে অনিয়মের অভিযোগ যাকে দিবো তারাও ওই ঠিকাদারের সাথে মিশে আছে।

এবিষয়ে জানতে চাইলে ঠিকাদার আফতাব বলেন, আমার লাইসেন্সে কাজ নেয়া হলেও কাজটি করছেন বাবলু মেম্বার। এই কাজে অনিয়ম হলে তার দায়ভার তাকেই বহন করতে হবে।

ওই ইউনিয়ন এর চেয়ারম্যান জুন সরকার বলেন, সড়ক সংস্কারে অনিয়ম হলে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের উচিত কঠোর ব্যবস্হা নেয়া।

এ বিষয়ে উপজেলা প্রকৌশলী আলী রেজা রাজু বলেন, সড়ক সংস্কারে অনিয়মের অভিযোগ পেয়েছি। সত্যতা মিললে বিল আটকিয়ে পুনরায় ওই সড়কের কাজ করে নেয়া হবে বলে তিনি সাংবাদিকদের জানান।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য


গ্রামীণ রাস্তা সংস্কারে অনিয়মঃ ধুলো মাটির উপর চলছে কার্পেটিং

আপডেট সময় : ০৬:৫৪:৪৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ নীলফামারীর সৈয়দপুর উপজেলার বোতলাগাড়ি ইউনিয়ন এর সড়ক সংস্কারে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। তড়িঘড়ি করে ধুলো আর মাটির উপরই চলছে কার্পেটিং এর কাজ। এর ফলে কার্পেটিং এর ২৪ ঘন্টার মধ্যেই সংস্কার করা সড়কের পাথরসহ অন্যান্য উপকরণ উঠে যাচ্ছে।

সৈয়দপুর উপজেলার এলজিইডি অফিস মারফত জানা যায়, ২১-২২ অর্থ বছরে উপজেলার বোতলাগাড়ি ইউনিয়ন সড়ক সংস্কারে রেলওয়ে কারখানার ব্রিজ সপ হতে পোড়ার হাট ডিসি মোড় পর্যন্ত ৭০ লাখ ৪২ হাজার ৩৮৫ টাকা বরাদ্দে ৩ কিলোমিটার পাকা করন সড়কের সংস্কার শুরু করেন দিশা ট্রেডার্সের স্বত্বাধিকারী ঠিকাদার আফতাব উদ্দিন। কাজটি ২০২১ অর্থ বছরে জুন থেকে শুরু করে ২০২২ এর জুন মাসে শেষ হওয়ার কথা। কিন্তু ওই ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান নির্ধারিত সময়ে সড়কের উপরের অংশ উপরে ফেলেন। এরপর দীর্ঘদিন অতিক্রমের পর সেপ্টেম্বর মাসের ২২ তারিখ তড়িঘড়ি কার্পেটিং এর শুরু করেন।

স্হানীয়রা বলেন কার্পেটিং করার আগে সড়কের ধুলো মাটি পরিস্কার করার কথা। কিন্তু ওই ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান তা না করে তড়িঘড়ি কার্পেটিংয়ের কাজ অব্যাহত রেখেছেন।

জয়নাল আবেদীন নামের এক ব্যাক্তি জানান, সড়ক সংস্কার কাজ অনিয়ম হলে যাতে কেউ প্রতিবাদ করতে সাহস না পায় এজন্য ওই ইউনিয়ন এর ৪ নং ওয়ার্ড মেম্বার বাবলুর দারা সংস্কার কাজ করানো হচ্ছে। তিনি বলেন যে মাপের পাথর ও পিচ দেয়ার কথা তা দেয়া হচ্ছে না। এরফলে একদিকে চলছে কার্পেটিংয়ের কাজ অন্যদিকে পথচারীর পায়ের ভারে তা উঠে যাচ্ছে।

স্হানীয়রা জানান, ঠিকাদার আফতাব হোসেন সড়কের কাজে দুর্নীতি ও অনিয়ম করতেই বাবলু মেম্বারের দারা কাজ করাচ্ছেন। তারা বলেন সংস্কার কাজে অনিয়মের অভিযোগ যাকে দিবো তারাও ওই ঠিকাদারের সাথে মিশে আছে।

এবিষয়ে জানতে চাইলে ঠিকাদার আফতাব বলেন, আমার লাইসেন্সে কাজ নেয়া হলেও কাজটি করছেন বাবলু মেম্বার। এই কাজে অনিয়ম হলে তার দায়ভার তাকেই বহন করতে হবে।

ওই ইউনিয়ন এর চেয়ারম্যান জুন সরকার বলেন, সড়ক সংস্কারে অনিয়ম হলে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের উচিত কঠোর ব্যবস্হা নেয়া।

এ বিষয়ে উপজেলা প্রকৌশলী আলী রেজা রাজু বলেন, সড়ক সংস্কারে অনিয়মের অভিযোগ পেয়েছি। সত্যতা মিললে বিল আটকিয়ে পুনরায় ওই সড়কের কাজ করে নেয়া হবে বলে তিনি সাংবাদিকদের জানান।