সৈয়দপুর ০৫:০৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ৪ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ঘরের মাঠে ঐতিহাসিক টেস্ট জয় টাইগারদের

ক্রীড়া ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ০৬:১৫:০৬ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২ ডিসেম্বর ২০২৩ ৩৩ বার পড়া হয়েছে
চোখ২৪.নেট অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

ক্রীড়া ডেস্ক: ড্যারিল মিচেল চেয়েছিলেন নাঈম হাসানের বলটি ডিফেন্স করতে, লেংথে পড়ে হালকা লাফিয়ে ওঠায় টাইমিংয়ে গড়বড় হয়ে শট লেগে ক্যাচ যায়। জাকির হাসান কিছুটা এগিয়ে থাকায় এ যাত্রায় বেঁচে যান মিচেল। এক বল পর একইরকম ডেলিভারি নাঈমের। এবার লাফিয়ে ওঠার আগে সুইপ করতে চেয়েছিলেন মিচেল, তাতেই কাল হলো। স্কয়ার লেগে ক্যাচ নেন তাইজুল ইসলাম। হতভম্ব মিচেল মাঠ ছাড়তে চাইছিলেন না, শেষ সব শেষ!

নিউজিল্যান্ডের সম্ভাবনা যেটুকু ছিল, ওখানেই বিলীন হয়ে যায়। সিলেট টেস্টে বাংলাদেশের জয়ের কাব্য গাঁথা হয়েছিল গতকাল ম্যাচের চতুর্থ দিনে। আজ ছিল শুধুই আনুষ্ঠানিকতা। সে পথে বাঁধা ছিলেন একমাত্র মিচেল।

আজ শেষ দিনের সকালের সেশনে আধা ঘণ্টা যেতেই মিচেলের উইকেট তুলে নেন নাঈম। এর পরেও অবশ্য ২ উইকেট ছিল সফরকারীদের। তবে ম্যাচ বাঁচানোর সাধ্য ছিল না আর। তাতে যেখানে নিউজিল্যান্ড দলে বিষাদের অবয়ব, সেখানে উৎসব-উন্মাদনা বাংলাদেশ দলে। এই আনন্দ নিউজিল্যান্ডকে হারানো, ঘরের মাঠে কিউইদের হারিয়ে টেস্ট জয়ের।

গতকাল ৩৩২ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ১১৩ রান তুলতে ৭ উইকেট হারায় নিউজিল্যান্ড। আজ শেষ দিনে হাতে থাকা ৩ উইকেটে তাদের প্রয়োজন ছিল ২১৯ রান। মিচেল ৪৪ ও ইশ সোধি ৭ রানে দিন শুরু করেন। তবে সুবিধা করতে পারেননি। আগের দিনের সঙ্গে ৬৮ রান যোগ করে বাকি ৩ উইকেট হারায় কিউইরা। এতে গুটিয়ে যায় ১৮১ রানে। ১৫০ রানের জয় পায় বাংলাদেশ।

যা প্রথমবার ঘরের মাঠে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ঐতিহাসিক টেস্ট জয় টাইগারদের। এমন জয়ে উজ্জ্বল তাইজুল ইসলাম। প্রথম ইনিংসে ৪ উইকেট নেয়া এই বাঁহাতি দ্বিতীয় ইনিংসে নেন ৬ উইকেট। সব মিলিয়ে ১০ উইকেট এই বাঁহাতি স্পিনারের।

সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামের এটি ছিল দ্বিতীয় টেস্ট আয়োজন। এই ভেন্যু প্রথম এবং সর্বশেষ টেস্ট আয়োজন করে ৫ বছর আগে। প্রত্যাবর্তন টেস্টে স্বাগতিকদের দুই হাত ভরে দিল চায়ের দেশ নামে পরিচিত সিলেট।

২৮ ডিসেম্বর শুরু হওয়া ম্যাচে টস জিতে প্রথম ইনিংসে ৩১০ রান তোলে বাংলাদেশ। কেন উইলিয়ামসনের শতকের পরও সফরকারীদের প্রথম ইনিংস থামে ৩১৭ রানে। ৭ রানে পিছিয়ে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করা বাংলাদেশ অধিনায়ক নাজমুল হোসেনের শতকে ৩৩৮ রান তোলে। ৩৩২ রানের লক্ষ্য দিয়ে আজ শেষ দিনে ৩ উইকেট প্রয়োজন ছিল বাংলাদেশের। প্রথম সেশনেই অপূর্ণ কাজটির সমাপ্তি চিহ্ন টেনে দিয়েছেন বাংলাদেশি বোলাররা। আরো নির্দিষ্ট করে বললে তাইজুল ইসলাম। ৩ উইকেটের ২টি নিয়েছেন, আগের দিন নিয়েছিলেন ৪ উইকেট। সব মিলিয়ে এই ইনিংসে ৬ উইকেট তার। এতেই নিউজিল্যান্ড গুটিয়ে যায় ১৮১ রানে। বাংলাদেশ জয় পায় ১৫০ রানে। এই জয়ে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের প্রথম ম্যাচ খেলতে নামা বাংলাদেশ ১২ পয়েন্ট দিয়ে যাত্রা শুরু করল।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য


ঘরের মাঠে ঐতিহাসিক টেস্ট জয় টাইগারদের

আপডেট সময় : ০৬:১৫:০৬ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২ ডিসেম্বর ২০২৩

ক্রীড়া ডেস্ক: ড্যারিল মিচেল চেয়েছিলেন নাঈম হাসানের বলটি ডিফেন্স করতে, লেংথে পড়ে হালকা লাফিয়ে ওঠায় টাইমিংয়ে গড়বড় হয়ে শট লেগে ক্যাচ যায়। জাকির হাসান কিছুটা এগিয়ে থাকায় এ যাত্রায় বেঁচে যান মিচেল। এক বল পর একইরকম ডেলিভারি নাঈমের। এবার লাফিয়ে ওঠার আগে সুইপ করতে চেয়েছিলেন মিচেল, তাতেই কাল হলো। স্কয়ার লেগে ক্যাচ নেন তাইজুল ইসলাম। হতভম্ব মিচেল মাঠ ছাড়তে চাইছিলেন না, শেষ সব শেষ!

নিউজিল্যান্ডের সম্ভাবনা যেটুকু ছিল, ওখানেই বিলীন হয়ে যায়। সিলেট টেস্টে বাংলাদেশের জয়ের কাব্য গাঁথা হয়েছিল গতকাল ম্যাচের চতুর্থ দিনে। আজ ছিল শুধুই আনুষ্ঠানিকতা। সে পথে বাঁধা ছিলেন একমাত্র মিচেল।

আজ শেষ দিনের সকালের সেশনে আধা ঘণ্টা যেতেই মিচেলের উইকেট তুলে নেন নাঈম। এর পরেও অবশ্য ২ উইকেট ছিল সফরকারীদের। তবে ম্যাচ বাঁচানোর সাধ্য ছিল না আর। তাতে যেখানে নিউজিল্যান্ড দলে বিষাদের অবয়ব, সেখানে উৎসব-উন্মাদনা বাংলাদেশ দলে। এই আনন্দ নিউজিল্যান্ডকে হারানো, ঘরের মাঠে কিউইদের হারিয়ে টেস্ট জয়ের।

গতকাল ৩৩২ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ১১৩ রান তুলতে ৭ উইকেট হারায় নিউজিল্যান্ড। আজ শেষ দিনে হাতে থাকা ৩ উইকেটে তাদের প্রয়োজন ছিল ২১৯ রান। মিচেল ৪৪ ও ইশ সোধি ৭ রানে দিন শুরু করেন। তবে সুবিধা করতে পারেননি। আগের দিনের সঙ্গে ৬৮ রান যোগ করে বাকি ৩ উইকেট হারায় কিউইরা। এতে গুটিয়ে যায় ১৮১ রানে। ১৫০ রানের জয় পায় বাংলাদেশ।

যা প্রথমবার ঘরের মাঠে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ঐতিহাসিক টেস্ট জয় টাইগারদের। এমন জয়ে উজ্জ্বল তাইজুল ইসলাম। প্রথম ইনিংসে ৪ উইকেট নেয়া এই বাঁহাতি দ্বিতীয় ইনিংসে নেন ৬ উইকেট। সব মিলিয়ে ১০ উইকেট এই বাঁহাতি স্পিনারের।

সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামের এটি ছিল দ্বিতীয় টেস্ট আয়োজন। এই ভেন্যু প্রথম এবং সর্বশেষ টেস্ট আয়োজন করে ৫ বছর আগে। প্রত্যাবর্তন টেস্টে স্বাগতিকদের দুই হাত ভরে দিল চায়ের দেশ নামে পরিচিত সিলেট।

২৮ ডিসেম্বর শুরু হওয়া ম্যাচে টস জিতে প্রথম ইনিংসে ৩১০ রান তোলে বাংলাদেশ। কেন উইলিয়ামসনের শতকের পরও সফরকারীদের প্রথম ইনিংস থামে ৩১৭ রানে। ৭ রানে পিছিয়ে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করা বাংলাদেশ অধিনায়ক নাজমুল হোসেনের শতকে ৩৩৮ রান তোলে। ৩৩২ রানের লক্ষ্য দিয়ে আজ শেষ দিনে ৩ উইকেট প্রয়োজন ছিল বাংলাদেশের। প্রথম সেশনেই অপূর্ণ কাজটির সমাপ্তি চিহ্ন টেনে দিয়েছেন বাংলাদেশি বোলাররা। আরো নির্দিষ্ট করে বললে তাইজুল ইসলাম। ৩ উইকেটের ২টি নিয়েছেন, আগের দিন নিয়েছিলেন ৪ উইকেট। সব মিলিয়ে এই ইনিংসে ৬ উইকেট তার। এতেই নিউজিল্যান্ড গুটিয়ে যায় ১৮১ রানে। বাংলাদেশ জয় পায় ১৫০ রানে। এই জয়ে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের প্রথম ম্যাচ খেলতে নামা বাংলাদেশ ১২ পয়েন্ট দিয়ে যাত্রা শুরু করল।