সৈয়দপুর ০৬:৪৩ অপরাহ্ন, শনিবার, ২২ জুন ২০২৪, ৮ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বেড়েছে শীতের তীব্রতা, ঘন কুয়াশার চাদরে খানসামা

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৩:৪৭:২০ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৬ ডিসেম্বর ২০২২ ১৩ বার পড়া হয়েছে
চোখ২৪.নেট অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

মোঃ নুরনবী ইসলাম, খানসামা (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ দিনাজপুরের খানসামা উপজেলায় বাড়তে শুরু করেছে শীতের তীব্রতা। ইতোমধ্যে মধ্যরাত থেকে পড়ছে ঘন কুয়াশা। আর এই ঘন কুয়াশার চাদরে ঢাকা পড়েছে পুরো উপজেলা। এ কারণে দিনের বেলাতেও যানবাহনে হেড লাইট জ্বালিয়ে চলতে হচ্ছে সড়কে।

রাত ৯টা থেকে ঘন কুয়াশা শুরু হয়ে বৃহস্পতিবার (১৫ ডিসেম্বর) সকাল সাড়ে ১১ টা পর্যন্ত এ ঘন কুয়াশা দেখা দেয়। এরপর আবার দুপুর দেড়টা থেকে সূর্য লুকোচুরি শুরু করে, যা বিকেল পর্যন্ত অব্যাহত রয়েছে। হিমালয়ের পাদদেশের এই উপজেলায় চলতি সপ্তাহে বৃষ্টিসহ মাসে দুটি মৃদু শৈত্যপ্রবাহের আশঙ্কা রয়েছে। তাপমাত্রা নেমে আসতে পারে ছয় থেকে আট ডিগ্রি সেলসিয়াসে।এ শীত বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বিপাকে পড়েছে খেটে খাওয়া মানুষ। সময় মতো কাজে যোগ দিতে তাদের বেগ পেতে হচ্ছে। এ ছাড়া শিশু ও বয়স্কদের পোহাতে হচ্ছে দুর্ভোগ।

স্থানীয়রা জানান, কুয়াশায় ঢাকা পড়ছে চারদিক। ফলে দিনের বেলাতেও বিভিন্ন যানবাহন চলছে হেডলাইট জ্বালিয়ে। দিনে সূর্যের আলো দেখা গেলেও প্রখরতা নেই। তবে বিকালের পর থেকে তাপমাত্রা কমে যাওয়ায় শীতের প্রকোপ বাড়ছে। আর সন্ধ্যার পর হিমেল বাতাসের পাশাপাশি বাড়ছে কুয়াশা। তাই ঘন কুয়াশা পড়ায় ক্ষেত খামারের কাজে যোগ দিতে দেরি হচ্ছে। ঘন কুয়াশার পাশাপাশি ঠান্ডায় কৃষিজীবীসহ নিম্ন আয়ের মানুষের কাজে বের হওয়া মুশকিল হয়ে পড়ছে।

আবহাওয়া অফিস সূত্রে জানা যায়, চলতি মাসেই আসছে শৈত্যপ্রবাহ, সেই সঙ্গে হালকা বৃষ্টিপাতও হতে পারে। এতে তাপমাত্রা ৮ থেকে ৬ ডিগ্রি পর্যন্ত কমতে পারে। বৃহস্পতিবার দিনাজপুরে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ১৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আর রাতে তাপমাত্রা ১২ ডিগ্রি সেলসিয়াস ছিল।

দিনাজপুর আবহাওয়া অফিসের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো.আসাদুজ্জামান বলেন, ডিসেম্বরে এক থেকে দুটি  শৈত্যপ্রবাহের সম্ভাবনা আছে। আগামী জানুয়ারিতে শীত বেশি থাকবে। সে সময় আরও কয়েক দফায় শৈত্যপ্রবাহের সম্ভাবনা রয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য


বেড়েছে শীতের তীব্রতা, ঘন কুয়াশার চাদরে খানসামা

আপডেট সময় : ০৩:৪৭:২০ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৬ ডিসেম্বর ২০২২

মোঃ নুরনবী ইসলাম, খানসামা (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ দিনাজপুরের খানসামা উপজেলায় বাড়তে শুরু করেছে শীতের তীব্রতা। ইতোমধ্যে মধ্যরাত থেকে পড়ছে ঘন কুয়াশা। আর এই ঘন কুয়াশার চাদরে ঢাকা পড়েছে পুরো উপজেলা। এ কারণে দিনের বেলাতেও যানবাহনে হেড লাইট জ্বালিয়ে চলতে হচ্ছে সড়কে।

রাত ৯টা থেকে ঘন কুয়াশা শুরু হয়ে বৃহস্পতিবার (১৫ ডিসেম্বর) সকাল সাড়ে ১১ টা পর্যন্ত এ ঘন কুয়াশা দেখা দেয়। এরপর আবার দুপুর দেড়টা থেকে সূর্য লুকোচুরি শুরু করে, যা বিকেল পর্যন্ত অব্যাহত রয়েছে। হিমালয়ের পাদদেশের এই উপজেলায় চলতি সপ্তাহে বৃষ্টিসহ মাসে দুটি মৃদু শৈত্যপ্রবাহের আশঙ্কা রয়েছে। তাপমাত্রা নেমে আসতে পারে ছয় থেকে আট ডিগ্রি সেলসিয়াসে।এ শীত বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বিপাকে পড়েছে খেটে খাওয়া মানুষ। সময় মতো কাজে যোগ দিতে তাদের বেগ পেতে হচ্ছে। এ ছাড়া শিশু ও বয়স্কদের পোহাতে হচ্ছে দুর্ভোগ।

স্থানীয়রা জানান, কুয়াশায় ঢাকা পড়ছে চারদিক। ফলে দিনের বেলাতেও বিভিন্ন যানবাহন চলছে হেডলাইট জ্বালিয়ে। দিনে সূর্যের আলো দেখা গেলেও প্রখরতা নেই। তবে বিকালের পর থেকে তাপমাত্রা কমে যাওয়ায় শীতের প্রকোপ বাড়ছে। আর সন্ধ্যার পর হিমেল বাতাসের পাশাপাশি বাড়ছে কুয়াশা। তাই ঘন কুয়াশা পড়ায় ক্ষেত খামারের কাজে যোগ দিতে দেরি হচ্ছে। ঘন কুয়াশার পাশাপাশি ঠান্ডায় কৃষিজীবীসহ নিম্ন আয়ের মানুষের কাজে বের হওয়া মুশকিল হয়ে পড়ছে।

আবহাওয়া অফিস সূত্রে জানা যায়, চলতি মাসেই আসছে শৈত্যপ্রবাহ, সেই সঙ্গে হালকা বৃষ্টিপাতও হতে পারে। এতে তাপমাত্রা ৮ থেকে ৬ ডিগ্রি পর্যন্ত কমতে পারে। বৃহস্পতিবার দিনাজপুরে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ১৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আর রাতে তাপমাত্রা ১২ ডিগ্রি সেলসিয়াস ছিল।

দিনাজপুর আবহাওয়া অফিসের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো.আসাদুজ্জামান বলেন, ডিসেম্বরে এক থেকে দুটি  শৈত্যপ্রবাহের সম্ভাবনা আছে। আগামী জানুয়ারিতে শীত বেশি থাকবে। সে সময় আরও কয়েক দফায় শৈত্যপ্রবাহের সম্ভাবনা রয়েছে।