সৈয়দপুর ০৬:৫৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ২২ জুন ২০২৪, ৮ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ভূরুঙ্গামারীতে বিকাশের ছিনতাই হওয়া ৬ লক্ষ ৬০ হাজার টাকাসহ মুলহোতা গ্রেফতার

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০১:২৯:৩৭ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৭ এপ্রিল ২০২৩ ১৪ বার পড়া হয়েছে
চোখ২৪.নেট অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

ভূরুঙ্গামারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধিঃ কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারীতে দিনে দুপুরে ছিনতাই হওয়া বিকাশে ১৫ লক্ষ টাকার অবশিষ্ট ৭ লক্ষ ৪০ হাজার টাকার মধ্যে ৬ লক্ষ ৬০ হাজার টাকা উদ্ধার ও মূল আসামী মোস্তফাকে গ্রেফতার করেছে ভূরুঙ্গামারী থানা পুলিশ।

এ নিয়ে ঘটনায় জড়িত সকল আসামী গ্রেফতার ও ১৫ লক্ষ টাকার মধ‍্যে মোট ১৪ লক্ষ ২০ হাজার টাকা উদ্ধার হয়েছে বলে জানিয়েছে ভূরুঙ্গামারী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নজরুল ইসলাম।

মঙ্গলবার (২৫ এপ্রিল) বিকেলে কুড়িগ্রাম গোয়েন্দা পুলিশের সহযোগিতায় ভূরুঙ্গামারী থানা পুলিশ কুড়িগ্রাম জিয়া বাজার এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। মোস্তফা ঘটনার দিন থেকেই আত্নগোপনে ছিল।

উল্লেখ্য গত ১৯ মার্চ সকাল ১১ টার দিকে বিকাশ কর্মী শ্রী শুভ কুমার রায় (২৬) ১৫ লক্ষ টাকা নিয়ে বিকাশ এজেন্টদের নিকট বিলি করার জন্য মোটরসাইকেল যোগে ভূরুঙ্গামারী থেকে সোনাহাট ক্যাম্পের মোড়ের উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেয়। উপজেলার সোনাহাট ইউনিয়নের দক্ষিণ ভরতেরছড়া গ্রামের জনৈক শাহ আলম মেম্বারের বাড়ির পার্শ্বে পাঁকা রাস্তার উপর দিয়ে যাওয়ার সময় পিছন থেকে ছিনতাই কারীরা তাদের মোটরসাইকেল দ্বারা ইচ্ছাকৃত ভাবে বিকাশকর্মীর চলন্ত মোটরসাইকেলের পিছন থেকে ধাক্কা দিলে বিকাশকর্মী তার সঙ্গে থাকা টিএমও শ্রী বিদ্যুৎ চন্দ্র সহ পাঁকা রাস্তার উপড় পড়ে যায়। সেই সুযোগে মোটরসাইকেলে থাকা ছিনতাইকারীরা বিকাশকর্মী শুভ কুমার এর কাছে একটি ব‍্যাগে থাকা ১৫ লক্ষ টাকা ছিনতাই করে সোনাহাট ক্যাম্পের মোড়ের দিকে পালিয়ে যায়। এই ঘটনার পর ভুক্তভোগী জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯ নম্বরে ফোন করে জানাইলে ভূরুঙ্গামারী ও কচাকাটা থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে উপজেলার বলদিয়া ইউনিয়নের ছনবান্ধা খলসেকুড়ি গ্রাম থেকে শ্রী প্রসেনজিত বর্মন, খাদিমুল ইসলাম লাল ও ছিনতাইকাজে সহযোগিতার অভিযোগে ওই গ্রামের মুন্নাফ আলীসহ ৩ জনকে আটক করে।

পরে ভূরুঙ্গামারী থানায় আটক ৩ জন ও ঘটনার মূল হোতা সোনাহাট ইউনিয়নের গনাইরকুঠি গ্রামের হানিফ মন্ডলের ছেলে মোস্তফাসহ মোট ৫ জনকে আসামী করে মামলা দায়ের করা হয়।

পরে ভূরুঙ্গামারী থানা পুলিশ তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার ও কুড়িগ্রাম গোয়েন্দা পুলিশের সহযোগীতায় ভূরুঙ্গামারী থানা পুলিশ কুড়িগ্রাম জিয়া বাজার এলাকা থেকে ছিনতাইয়ের মুলহোতা মোস্তফাকে ২৫ এপ্রিল মঙ্গলবার বিকেলে গ্রেফতার করে। আটকের পর মোস্তফাকে জিজ্ঞাসাবাদে ঘটনার সাথে জড়িত থাকার বিষয়ে ও তার হেফাজতে ছিনতাইকৃত টাকা থাকার কথা স্বীকার করে। আসামীর স্বীকারোক্তি মোতাবেক বুধবার রাত্র পৌনে চারটার দিকে তার বাড়িতে অভিযান চালায় পুলিশ। এসময় তার বসত বাড়ি থেকে ছিনতাইকৃত অবশিষ্ট ৭ লক্ষ ৪০ হাজার টাকার মধ্যে বিকাশের জনতা ট্রেডার্স কোম্পানীর ব্যাগ সহ ৬ লক্ষ ৬০ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়। এ নিয়ে ছিনতাইকৃত ১৫ লক্ষ টাকার মধ্য মোট ১৪ লক্ষ ২০ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

ভূরুঙ্গামারী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নজরুল ইসলাম জানান, ছিনতাই এর ঘটনায় ব্যবহৃত মোটসাইকেল ও অন্যান্য সকল আলামতও জব্দ করে ঘটনায় জড়িত সকল আসামীকে গ্রেফতার করে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য


ভূরুঙ্গামারীতে বিকাশের ছিনতাই হওয়া ৬ লক্ষ ৬০ হাজার টাকাসহ মুলহোতা গ্রেফতার

আপডেট সময় : ০১:২৯:৩৭ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৭ এপ্রিল ২০২৩

ভূরুঙ্গামারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধিঃ কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারীতে দিনে দুপুরে ছিনতাই হওয়া বিকাশে ১৫ লক্ষ টাকার অবশিষ্ট ৭ লক্ষ ৪০ হাজার টাকার মধ্যে ৬ লক্ষ ৬০ হাজার টাকা উদ্ধার ও মূল আসামী মোস্তফাকে গ্রেফতার করেছে ভূরুঙ্গামারী থানা পুলিশ।

এ নিয়ে ঘটনায় জড়িত সকল আসামী গ্রেফতার ও ১৫ লক্ষ টাকার মধ‍্যে মোট ১৪ লক্ষ ২০ হাজার টাকা উদ্ধার হয়েছে বলে জানিয়েছে ভূরুঙ্গামারী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নজরুল ইসলাম।

মঙ্গলবার (২৫ এপ্রিল) বিকেলে কুড়িগ্রাম গোয়েন্দা পুলিশের সহযোগিতায় ভূরুঙ্গামারী থানা পুলিশ কুড়িগ্রাম জিয়া বাজার এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। মোস্তফা ঘটনার দিন থেকেই আত্নগোপনে ছিল।

উল্লেখ্য গত ১৯ মার্চ সকাল ১১ টার দিকে বিকাশ কর্মী শ্রী শুভ কুমার রায় (২৬) ১৫ লক্ষ টাকা নিয়ে বিকাশ এজেন্টদের নিকট বিলি করার জন্য মোটরসাইকেল যোগে ভূরুঙ্গামারী থেকে সোনাহাট ক্যাম্পের মোড়ের উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেয়। উপজেলার সোনাহাট ইউনিয়নের দক্ষিণ ভরতেরছড়া গ্রামের জনৈক শাহ আলম মেম্বারের বাড়ির পার্শ্বে পাঁকা রাস্তার উপর দিয়ে যাওয়ার সময় পিছন থেকে ছিনতাই কারীরা তাদের মোটরসাইকেল দ্বারা ইচ্ছাকৃত ভাবে বিকাশকর্মীর চলন্ত মোটরসাইকেলের পিছন থেকে ধাক্কা দিলে বিকাশকর্মী তার সঙ্গে থাকা টিএমও শ্রী বিদ্যুৎ চন্দ্র সহ পাঁকা রাস্তার উপড় পড়ে যায়। সেই সুযোগে মোটরসাইকেলে থাকা ছিনতাইকারীরা বিকাশকর্মী শুভ কুমার এর কাছে একটি ব‍্যাগে থাকা ১৫ লক্ষ টাকা ছিনতাই করে সোনাহাট ক্যাম্পের মোড়ের দিকে পালিয়ে যায়। এই ঘটনার পর ভুক্তভোগী জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯ নম্বরে ফোন করে জানাইলে ভূরুঙ্গামারী ও কচাকাটা থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে উপজেলার বলদিয়া ইউনিয়নের ছনবান্ধা খলসেকুড়ি গ্রাম থেকে শ্রী প্রসেনজিত বর্মন, খাদিমুল ইসলাম লাল ও ছিনতাইকাজে সহযোগিতার অভিযোগে ওই গ্রামের মুন্নাফ আলীসহ ৩ জনকে আটক করে।

পরে ভূরুঙ্গামারী থানায় আটক ৩ জন ও ঘটনার মূল হোতা সোনাহাট ইউনিয়নের গনাইরকুঠি গ্রামের হানিফ মন্ডলের ছেলে মোস্তফাসহ মোট ৫ জনকে আসামী করে মামলা দায়ের করা হয়।

পরে ভূরুঙ্গামারী থানা পুলিশ তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার ও কুড়িগ্রাম গোয়েন্দা পুলিশের সহযোগীতায় ভূরুঙ্গামারী থানা পুলিশ কুড়িগ্রাম জিয়া বাজার এলাকা থেকে ছিনতাইয়ের মুলহোতা মোস্তফাকে ২৫ এপ্রিল মঙ্গলবার বিকেলে গ্রেফতার করে। আটকের পর মোস্তফাকে জিজ্ঞাসাবাদে ঘটনার সাথে জড়িত থাকার বিষয়ে ও তার হেফাজতে ছিনতাইকৃত টাকা থাকার কথা স্বীকার করে। আসামীর স্বীকারোক্তি মোতাবেক বুধবার রাত্র পৌনে চারটার দিকে তার বাড়িতে অভিযান চালায় পুলিশ। এসময় তার বসত বাড়ি থেকে ছিনতাইকৃত অবশিষ্ট ৭ লক্ষ ৪০ হাজার টাকার মধ্যে বিকাশের জনতা ট্রেডার্স কোম্পানীর ব্যাগ সহ ৬ লক্ষ ৬০ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়। এ নিয়ে ছিনতাইকৃত ১৫ লক্ষ টাকার মধ্য মোট ১৪ লক্ষ ২০ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

ভূরুঙ্গামারী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নজরুল ইসলাম জানান, ছিনতাই এর ঘটনায় ব্যবহৃত মোটসাইকেল ও অন্যান্য সকল আলামতও জব্দ করে ঘটনায় জড়িত সকল আসামীকে গ্রেফতার করে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।