সৈয়দপুর ১১:১২ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২২ জুন ২০২৪, ৮ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ভোরের ঝড়ে খানসামায় বিধস্ত ঘরবাড়ি

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১২:২০:০৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ মে ২০২৩ ৩১ বার পড়া হয়েছে
চোখ২৪.নেট অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি
মোঃ নুরনবী ইসলাম, খানসামা (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ দিনাজপুরের খানসামা উপজেলায় বৈশাখী ঝড়ে বিধস্ত হয়েছে প্রায় শতাধিক ঘর-বাড়ি ও ভেঙেছে গাছপালা। এতে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানও। অনেক এলাকায় চলাচল বিঘ্ন ও বিদ্যুৎ সংযোগ সাময়িক বিচ্ছিন্ন হয়েছে।
ঘটনাটি সোমবার (২২ মে) ভোর ৪টার দিকে ঘটেছে। এই বৃষ্টির সাথে ঝড়ো হাওয়া ও বজ্রপাত হয়। মঙ্গলবার দুপুরেও কালবৈশাখী ঝড় হয়।
মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলার আরাজী যুগীরঘোাপা গ্রামে সরেজমিনে দেখা যায়, আকতারুল নামে এক ব্যক্তির ইটের দেওয়ালে গাছ উপড়ে পড়ে ভেঙে যায়। এতে পানির ট্যাংক ও সেফটি ট্যাংকিও ভেঙে যায়। তবে হতাহতের ঘটনা নেই। এছাড়াও উপজেলার হাসিমপুর, ছাতিয়ানগড় এলাকাতেও ক্ষতিগ্রস্ত হয়। ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় বিদ্যুৎ সংযোগ সচল ও যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক করতে কাজ করছে বিদ্যুৎ বিভাগ এবং ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স সদস্যরা।
গোয়ালডিহি ইউপি চেয়ারম্যান সাখাওয়াত হোসেন লিটন বলেন, উপজেলা প্রশাসনকে অবগত করার জন্য ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের তালিকা তৈরীতে ইউনিয়ন পরিষদ কাজ করছে।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার রাশিদা আক্তার বলেন,  সোমবার ভোরের বৈশাখী ঝড়ে উপজেলার প্রায় ইউনিয়নে অনেক ঘর বাড়ি ভেঙ্গেছে। গাছপালা উপড়ে পড়েছে। ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানদের তালিকা তৈরী করতে বলা হয়েছে। এই তালিকা অনুযায়ী ক্ষতিগ্রস্তদের উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সহায়তা করা হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য


ভোরের ঝড়ে খানসামায় বিধস্ত ঘরবাড়ি

আপডেট সময় : ১২:২০:০৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ মে ২০২৩
মোঃ নুরনবী ইসলাম, খানসামা (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ দিনাজপুরের খানসামা উপজেলায় বৈশাখী ঝড়ে বিধস্ত হয়েছে প্রায় শতাধিক ঘর-বাড়ি ও ভেঙেছে গাছপালা। এতে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানও। অনেক এলাকায় চলাচল বিঘ্ন ও বিদ্যুৎ সংযোগ সাময়িক বিচ্ছিন্ন হয়েছে।
ঘটনাটি সোমবার (২২ মে) ভোর ৪টার দিকে ঘটেছে। এই বৃষ্টির সাথে ঝড়ো হাওয়া ও বজ্রপাত হয়। মঙ্গলবার দুপুরেও কালবৈশাখী ঝড় হয়।
মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলার আরাজী যুগীরঘোাপা গ্রামে সরেজমিনে দেখা যায়, আকতারুল নামে এক ব্যক্তির ইটের দেওয়ালে গাছ উপড়ে পড়ে ভেঙে যায়। এতে পানির ট্যাংক ও সেফটি ট্যাংকিও ভেঙে যায়। তবে হতাহতের ঘটনা নেই। এছাড়াও উপজেলার হাসিমপুর, ছাতিয়ানগড় এলাকাতেও ক্ষতিগ্রস্ত হয়। ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় বিদ্যুৎ সংযোগ সচল ও যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক করতে কাজ করছে বিদ্যুৎ বিভাগ এবং ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স সদস্যরা।
গোয়ালডিহি ইউপি চেয়ারম্যান সাখাওয়াত হোসেন লিটন বলেন, উপজেলা প্রশাসনকে অবগত করার জন্য ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের তালিকা তৈরীতে ইউনিয়ন পরিষদ কাজ করছে।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার রাশিদা আক্তার বলেন,  সোমবার ভোরের বৈশাখী ঝড়ে উপজেলার প্রায় ইউনিয়নে অনেক ঘর বাড়ি ভেঙ্গেছে। গাছপালা উপড়ে পড়েছে। ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানদের তালিকা তৈরী করতে বলা হয়েছে। এই তালিকা অনুযায়ী ক্ষতিগ্রস্তদের উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সহায়তা করা হবে।