সৈয়দপুর ০৫:১৯ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মাদক নিরাময় কেন্দ্রের বিরুদ্ধে রোগীকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৮:৫৮:৫১ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ৩১ মার্চ ২০২৩ ১৮ বার পড়া হয়েছে
চোখ২৪.নেট অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

মোঃ আবরারুজ্জামান, বিশেষ প্রতিনিধিঃ রংপুর নগরীতে স্নেহা নামে একটি মাদক নিরাময় কেন্দ্রে মেহেদী হাসান (২৫) নামে এক রোগীকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। বুধবার দুপুরে মাদক নিরাময় কেন্দ্রের একটি কক্ষ থেকে ওই যুবকের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

নিহত মেহেদী হাসান রংপুর মহানগরীর ৩২ নম্বর ওয়ার্ডের ধর্মদাস মুসলিমপাড়া এলাকার মশিউর রহমানের ছেলে। সম্প্রতি সু-চিকিৎসার জন্য তাকে স্নেহা মাদক নিরাময় কেন্দ্রে ভর্তি করা হয়।

পরিবার সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার তার পরিবারের লোকজন মেহেদীর সঙ্গে দেখা করেন। বুধবার সকালে পরিবারকে সংবাদ দেওয়া হয় মেহেদী মারা গেছেন। পরে পরিবারের লোকজন ঘটনাস্থলে এসে জানতে পারেন তিনি আত্মহত্যা করেছেন।

তবে স্বজনদের দাবি, মেহেদীকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। তার শরীরের আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তারা এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত ও জড়িতদের কঠোর শাস্তির দাবি জানিয়েছেন।

রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের কোতয়ালী থানার এসআই মিঠু আহমেদ বলেন, ঘটনাস্থল থেকে মরদেহ উদ্ধার করে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্ত শেষে মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে। পরিবার থেকে অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য


মাদক নিরাময় কেন্দ্রের বিরুদ্ধে রোগীকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ

আপডেট সময় : ০৮:৫৮:৫১ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ৩১ মার্চ ২০২৩

মোঃ আবরারুজ্জামান, বিশেষ প্রতিনিধিঃ রংপুর নগরীতে স্নেহা নামে একটি মাদক নিরাময় কেন্দ্রে মেহেদী হাসান (২৫) নামে এক রোগীকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। বুধবার দুপুরে মাদক নিরাময় কেন্দ্রের একটি কক্ষ থেকে ওই যুবকের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

নিহত মেহেদী হাসান রংপুর মহানগরীর ৩২ নম্বর ওয়ার্ডের ধর্মদাস মুসলিমপাড়া এলাকার মশিউর রহমানের ছেলে। সম্প্রতি সু-চিকিৎসার জন্য তাকে স্নেহা মাদক নিরাময় কেন্দ্রে ভর্তি করা হয়।

পরিবার সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার তার পরিবারের লোকজন মেহেদীর সঙ্গে দেখা করেন। বুধবার সকালে পরিবারকে সংবাদ দেওয়া হয় মেহেদী মারা গেছেন। পরে পরিবারের লোকজন ঘটনাস্থলে এসে জানতে পারেন তিনি আত্মহত্যা করেছেন।

তবে স্বজনদের দাবি, মেহেদীকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। তার শরীরের আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তারা এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত ও জড়িতদের কঠোর শাস্তির দাবি জানিয়েছেন।

রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের কোতয়ালী থানার এসআই মিঠু আহমেদ বলেন, ঘটনাস্থল থেকে মরদেহ উদ্ধার করে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্ত শেষে মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে। পরিবার থেকে অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।