সৈয়দপুর ০৫:১৮ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নীলফামারীর সৈয়দপুরে চোখ ওঠা রোগের প্রকোপ বৃদ্ধি

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৪:৫৯:৫৬ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ৮ অক্টোবর ২০২২ ১৪ বার পড়া হয়েছে
চোখ২৪.নেট অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

মোঃ আবুল কালাম আজাদ, স্টাফ রিপোর্টারঃ নীলফামারীর সৈয়দপুর উপজেলায় বাড়ছে চোখ ওঠা রোগের প্রকোপ। গত এক সপ্তাহে এ রোগের প্রকোপ বৃদ্ধি পাওয়ায় উপজেলার শত শত নারী-পুরুষ ও শিশুরা এ রোগে আক্রান্ত হয়েছেন। প্রতিদিনই চোখ ওঠা রোগে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বেড়েই চলছে। তবে চোখ ওঠা রোগে আক্রান্ত পুরুষের সংখ্যাই বেশি।

এদিকে ভাইরাসজনিত চোখ ওঠা রোগটি দ্রুত ছড়িয়ে পড়ায় উপজেলার শহরের বিভিন্ন বাজারের ফর্মেসিগুলোতে চোখের ড্রপের চাহিদা বেড়েছে উল্লেখযোগ্য হারে। সাথে দাম বাড়ায় কিছুতা ভোগান্তিতে পড়ছে রোগীরা।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, উপজেলার প্রায় প্রত্যেক গ্রামেই চোখ ওঠা রোগ হানা দিয়েছে। প্রতিদিনই সরকারি হাসপাতাল, গ্রাম্য চিকিৎসক ও চক্ষু বিশেষজ্ঞদের কাছে চোখ ওঠা রোগীরা ভিড় করছেন। বাড়ির একজন সদস্য আক্রান্ত হলে পরিবারের প্রায় সব সদস্যই এ রোগে আক্রান্ত হচ্ছেন। সাধারণত চোখ লাল হওয়া, চোখ দিয়ে পানি পড়া, চোখে ময়লা হওয়া, চোখে ব্যথা অনুভব ও খচখচ করা, রোদে অস্বস্তি লাগা লক্ষণ নিয়ে রোগীরা চিকিৎসকের কাছে যাচ্ছেন। এ রোগে আক্রান্ত শিশুরা ৪-৫ দিনের মধ্যে ভালো হলেও বড়দের ক্ষেত্রে ৮ থেকে ১০ দিন পর্যন্ত সময় লেগে যাচ্ছে।

সৈয়দপুর ১০০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালের চিকিৎসক মোঃ আব্দুল হাইয়্যুল কবির রাজিব বলেন, সাড়া দেশের ন্যায় গত কয়েকদিনে উপজেলায় চোখ ওঠা রোগের প্রকোপ বেড়েছে। হাসপাতালে প্রতিদিন ২০ থেকে ৩০ জন রোগী চিকিৎসা নিচ্ছেন। গত এক সপ্তাহে হাসপাতালে প্রায় ২ শতাধিক রোগীকে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। এদের মধ্যে পুরুষ রোগীর সংখ্যাই বেশি।

মোঃ আব্দুল হাইয়্যুল কবির রাজিব বলেন, আতঙ্কিত না হয়ে এ রোগে সতর্কতা অবলম্বন করা জরুরি। আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসা নেওয়ার পাশাপাশি চোখ পরিষ্কার রাখা এবং সূর্যালোকে কালো রঙের চশমা ব্যবহারের পরামর্শসহ সতর্কতা অবলম্বন করতে বলা হচ্ছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য


নীলফামারীর সৈয়দপুরে চোখ ওঠা রোগের প্রকোপ বৃদ্ধি

আপডেট সময় : ০৪:৫৯:৫৬ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ৮ অক্টোবর ২০২২

মোঃ আবুল কালাম আজাদ, স্টাফ রিপোর্টারঃ নীলফামারীর সৈয়দপুর উপজেলায় বাড়ছে চোখ ওঠা রোগের প্রকোপ। গত এক সপ্তাহে এ রোগের প্রকোপ বৃদ্ধি পাওয়ায় উপজেলার শত শত নারী-পুরুষ ও শিশুরা এ রোগে আক্রান্ত হয়েছেন। প্রতিদিনই চোখ ওঠা রোগে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বেড়েই চলছে। তবে চোখ ওঠা রোগে আক্রান্ত পুরুষের সংখ্যাই বেশি।

এদিকে ভাইরাসজনিত চোখ ওঠা রোগটি দ্রুত ছড়িয়ে পড়ায় উপজেলার শহরের বিভিন্ন বাজারের ফর্মেসিগুলোতে চোখের ড্রপের চাহিদা বেড়েছে উল্লেখযোগ্য হারে। সাথে দাম বাড়ায় কিছুতা ভোগান্তিতে পড়ছে রোগীরা।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, উপজেলার প্রায় প্রত্যেক গ্রামেই চোখ ওঠা রোগ হানা দিয়েছে। প্রতিদিনই সরকারি হাসপাতাল, গ্রাম্য চিকিৎসক ও চক্ষু বিশেষজ্ঞদের কাছে চোখ ওঠা রোগীরা ভিড় করছেন। বাড়ির একজন সদস্য আক্রান্ত হলে পরিবারের প্রায় সব সদস্যই এ রোগে আক্রান্ত হচ্ছেন। সাধারণত চোখ লাল হওয়া, চোখ দিয়ে পানি পড়া, চোখে ময়লা হওয়া, চোখে ব্যথা অনুভব ও খচখচ করা, রোদে অস্বস্তি লাগা লক্ষণ নিয়ে রোগীরা চিকিৎসকের কাছে যাচ্ছেন। এ রোগে আক্রান্ত শিশুরা ৪-৫ দিনের মধ্যে ভালো হলেও বড়দের ক্ষেত্রে ৮ থেকে ১০ দিন পর্যন্ত সময় লেগে যাচ্ছে।

সৈয়দপুর ১০০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালের চিকিৎসক মোঃ আব্দুল হাইয়্যুল কবির রাজিব বলেন, সাড়া দেশের ন্যায় গত কয়েকদিনে উপজেলায় চোখ ওঠা রোগের প্রকোপ বেড়েছে। হাসপাতালে প্রতিদিন ২০ থেকে ৩০ জন রোগী চিকিৎসা নিচ্ছেন। গত এক সপ্তাহে হাসপাতালে প্রায় ২ শতাধিক রোগীকে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। এদের মধ্যে পুরুষ রোগীর সংখ্যাই বেশি।

মোঃ আব্দুল হাইয়্যুল কবির রাজিব বলেন, আতঙ্কিত না হয়ে এ রোগে সতর্কতা অবলম্বন করা জরুরি। আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসা নেওয়ার পাশাপাশি চোখ পরিষ্কার রাখা এবং সূর্যালোকে কালো রঙের চশমা ব্যবহারের পরামর্শসহ সতর্কতা অবলম্বন করতে বলা হচ্ছে।