সৈয়দপুর ০১:৩১ অপরাহ্ন, শনিবার, ২২ জুন ২০২৪, ৮ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কিশোরগঞ্জে আতঙ্কগ্রস্থদের হাতে প্রান গেল বনছুট চিতার

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১১:৪৭:০২ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২০ ডিসেম্বর ২০২৩ ৩৭ বার পড়া হয়েছে
চোখ২৪.নেট অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

ফজল কাদির: নীলফামারীর কিশারগঞ্জে আতঙ্কগ্রস্থদের হাতে প্রাণ গেল বনছুট চিতা বাঘের। বুধবার সকালে মাগুড়া ইউনিয়নের মাগুড়ায় ধান ক্ষেত মাঠের গাছে প্রায় ৫ ফিট বিশিষ্ট একটি চিতা বাঘক দেখতে পায় এলাকাবাসী। সংবাদটি চারদিক ছড়িয় পড়লে শত শত উৎসুক মানুষ চারদিক ঘিরে ফেলে। প্রায় ২ ঘন্টা পর গাছ থেকে চিতা বাঘটি প্রাণভয়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে আতঙ্কগ্রস্থদের হাতে থাকা বিভিন্ন ধারালা অস্ত্র দিয়ে তার প্রাননাশ করে। পর গ্রামবাসী চিতা বাঘটিকে গাছে ঝুলিয়ে রাখে। গত বছরও কিশারগঞ্জের পানিয়ালপুকুর গ্রামে বনছুট ১টি চিতা বাঘের প্রাননাশ করা হয়।

চিতা বাঘটির প্রাননাশ করার সময় ৪ ব্যক্তি আহত হয়। আহতরা হলেন, মাগুড়া ইউনিয়নর আকালীবচা পাড়া গ্রামের বুদু মিয়ার ছেলে বুলেট মিয়া (২৮), মৃত মকবুল হোসেনের ছেলে ফেরদৌস আলম (৩৫) ছোকমাল হোসেনের ছেলে নায়েব আলী (৪০) ও মাগুড়া উত্তর পাড়া গ্রামর চাঁন মিয়ার শিশু সন্তান জানাতুল (৮)। আহত ব্যক্তিদেরকে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সকাল সাড়ে ১০টায় ক্যানেল ব্রীজ সংলগ্ন গাছে একটি চিতা বাঘ দেখতে পেয়ে চিৎকার দিলে এলাকার লোকজন বাঘ দেখার জন্য ভীড় জমায়।

কিশারগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ বলন, আমরা চিতা বাঘটিকে মৃত উদ্ধার করে উপজলা প্রাণি সম্পদ দপ্তরে দিয়েছি। বাঘটির পোষ্ট মর্টম করে বন বিভাগ তা সংরক্ষণ করবে বলে জানিয়েছে।

রংপুর বন বিভাগর জীব বৈচিত্র সংরক্ষণ কর্মকর্তা তিথি সিংহ বলন, এটি ভারতের কান বন থেকে পথ ভুলে আসা চিতা বাঘ বলে মনে হচ্ছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য


কিশোরগঞ্জে আতঙ্কগ্রস্থদের হাতে প্রান গেল বনছুট চিতার

আপডেট সময় : ১১:৪৭:০২ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২০ ডিসেম্বর ২০২৩

ফজল কাদির: নীলফামারীর কিশারগঞ্জে আতঙ্কগ্রস্থদের হাতে প্রাণ গেল বনছুট চিতা বাঘের। বুধবার সকালে মাগুড়া ইউনিয়নের মাগুড়ায় ধান ক্ষেত মাঠের গাছে প্রায় ৫ ফিট বিশিষ্ট একটি চিতা বাঘক দেখতে পায় এলাকাবাসী। সংবাদটি চারদিক ছড়িয় পড়লে শত শত উৎসুক মানুষ চারদিক ঘিরে ফেলে। প্রায় ২ ঘন্টা পর গাছ থেকে চিতা বাঘটি প্রাণভয়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে আতঙ্কগ্রস্থদের হাতে থাকা বিভিন্ন ধারালা অস্ত্র দিয়ে তার প্রাননাশ করে। পর গ্রামবাসী চিতা বাঘটিকে গাছে ঝুলিয়ে রাখে। গত বছরও কিশারগঞ্জের পানিয়ালপুকুর গ্রামে বনছুট ১টি চিতা বাঘের প্রাননাশ করা হয়।

চিতা বাঘটির প্রাননাশ করার সময় ৪ ব্যক্তি আহত হয়। আহতরা হলেন, মাগুড়া ইউনিয়নর আকালীবচা পাড়া গ্রামের বুদু মিয়ার ছেলে বুলেট মিয়া (২৮), মৃত মকবুল হোসেনের ছেলে ফেরদৌস আলম (৩৫) ছোকমাল হোসেনের ছেলে নায়েব আলী (৪০) ও মাগুড়া উত্তর পাড়া গ্রামর চাঁন মিয়ার শিশু সন্তান জানাতুল (৮)। আহত ব্যক্তিদেরকে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সকাল সাড়ে ১০টায় ক্যানেল ব্রীজ সংলগ্ন গাছে একটি চিতা বাঘ দেখতে পেয়ে চিৎকার দিলে এলাকার লোকজন বাঘ দেখার জন্য ভীড় জমায়।

কিশারগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ বলন, আমরা চিতা বাঘটিকে মৃত উদ্ধার করে উপজলা প্রাণি সম্পদ দপ্তরে দিয়েছি। বাঘটির পোষ্ট মর্টম করে বন বিভাগ তা সংরক্ষণ করবে বলে জানিয়েছে।

রংপুর বন বিভাগর জীব বৈচিত্র সংরক্ষণ কর্মকর্তা তিথি সিংহ বলন, এটি ভারতের কান বন থেকে পথ ভুলে আসা চিতা বাঘ বলে মনে হচ্ছে।