সৈয়দপুর ০৬:০৯ অপরাহ্ন, শনিবার, ২২ জুন ২০২৪, ৮ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নেতৃত্ব নির্বাচনে আগামীকাল খানসামা উপজেলা আ.লীগের সম্মেলন

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৬:৫৪:১২ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১০ অক্টোবর ২০২২ ১৫ বার পড়া হয়েছে
চোখ২৪.নেট অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

নিজস্ব প্রতিনিধি: প্রায় ১০ বছর পর হতে যাচ্ছে দিনাজপুরের খানসামা উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন। এর আগে ২০১২ সালের ১২ই ডিসেম্বর সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। দীর্ঘ সময় অতিবাহিত হওয়ার পর আগামী ১১ অক্টোবর উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। এবার সম্মেলনে কে হচ্ছে আগামী দিনের কর্ণধার? সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক এই নিয়ে চলছে নেতাকর্মী ও আওয়ামী লীগপন্থিদের হিসাব-নিকাশ।

সম্মেলন ঘিরে নেতাকর্মীরা এখন বেশ উজ্জীবিত। চায়ের দোকান, ক্লাব, অফিসপাড়া, দলীয় কার্যালয় থেকে শুরু করে উপজেলার প্রতিটি ইউনিয়নে, আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মী, সমর্থক ও শুভানুধ্যায়ীদের মধ্যে চলছে টান টান উত্তেজনা।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমও চলছে সমর্থকদের ব্যাপক প্রচারণা। সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা তাদের পছন্দের নেতাকে নিয়ে পোস্ট দিচ্ছেন ফেসবুকে। সব মিলিয়ে এক উৎসবমুখর পরিবেশ বিরাজ করছে উপজেলা জুড়ে।

এদিকে সম্মেলনের দিন, সময় যতই এগিয়ে আসছে, দলীয় নেতাকর্মীদের মধ্যে কৌতূহল ও উৎসাহ উদ্দীপনা বৃদ্ধি পাচ্ছে।

সম্মেলন সম্পর্কে একাধিক নেতাকর্মী জানিয়েছেন, ৬ ইউনিয়নের ৫৪ টি ওয়ার্ডের মধ্যে ২৯ টি ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের কাউন্সিল স্থগিত করা হয়েছে। ইতিপূর্বে দুই দফায় ২৫টি ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের কাউন্সিলে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত করা হয়।

কাউন্সিল স্থগিত হওয়া ওয়ার্ডগুলো হল আলোকঝাড়ী ইউনিয়নের ৯টি ওয়ার্ড, ভেড়ভেড়ী ইউনিয়নের ২, ৪, ৫, ৮ ও ৯ নং ওয়ার্ড, আঙ্গারপাড়া ইউনিয়নের ১, ৪, ৬, ৭, ৮ ও ৯ নং ওয়ার্ড, খামারপাড়া ইউনিয়নের ১, ৩, ৪, ৭ ও ৮ নং ওয়ার্ড, ভাবকি ইউনিয়নের ৬ ও ৯ নং ওয়ার্ড এবং গোয়ালডিহি ইউনিয়নের ৫ ও ৬ নং ওয়ার্ড। তবে এর মধ্যে খামারপাড়া ইউনিয়নের ৩ ও ৮ নং ওয়ার্ডে শুধু সভাপতি পদে কাউন্সিল সম্পন্ন হয়। বিভিন্ন কারণে কাউন্সিল স্থগিত ঘোষণা করেন কতৃপক্ষ।

ওয়ার্ড কাউন্সিল শেষ না করেই দেওয়া হচ্ছে উপজেলা ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন। জানা যায় উপজেলা সম্মেলনের পর নবীন ও প্রবীণদের সমন্বয়ে ৬টি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সম্মেলণের দিনখন ঠিক হবে। উপজেলা কমিটিতে, সৎ, যোগ্য, মেধাবী ও দলের দুর্দিনের পরীক্ষিত নেতাকর্মীদের যাচাই-বাছাই শেষে নতুন কমিটিতে নেতারা তাদেরই স্থান দেবেন। যারা আগামী দিনে এ অঞ্চলের জনসাধারণ ও নেতাকর্মীদের পাশে থেকে বিভিন্ন আন্দোলন, সংগ্রামে নেতৃত্ব দেবেন এমনটাই আশা অনেকের।

আসন্ন উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে মাঠপর্যায়ে যাদের নাম শোনা যাচ্ছে সভাপতি পদে উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও ৩নং আঙ্গারপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তফা আহমেদ শাহ্ ও জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি শেখ রফিকুল ইসলাম। সাধারণ সম্পাদক পদে বর্তমান উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সফিউল আযম চৌধুরী লায়ন, পাকেরহাট ডিগ্রী কলেজের সাবেক জিএস ও ৩নং আঙ্গারপাড়া ইউপি’র সাধারণ সম্পাদক ধীমান চন্দ্র দাস, মরহুম আবু হাতেমের পুত্র প্রভাষক আনোয়ার হোসেন রানা এবং প্রমথ চন্দ্র রায়।

সাধারণ নেতাকর্মীদের প্রত্যাশা ত্যাগী ও জনসমর্থন আছে এমন নেতাদের সভাপতি সাধারণ সম্পাদক হিসেবে নির্বাচিত করলে সংগঠন শক্তিশালী হবে। আগামী জাতীয় নির্বাচন ও আন্দোলন সংগ্রামের বিষয় মাথায় রেখে যাতে কমিটির প্রতি বিশেষ দৃষ্টি রাখা হয় সেই আশাবাদ সবার।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য


নেতৃত্ব নির্বাচনে আগামীকাল খানসামা উপজেলা আ.লীগের সম্মেলন

আপডেট সময় : ০৬:৫৪:১২ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১০ অক্টোবর ২০২২

নিজস্ব প্রতিনিধি: প্রায় ১০ বছর পর হতে যাচ্ছে দিনাজপুরের খানসামা উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন। এর আগে ২০১২ সালের ১২ই ডিসেম্বর সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। দীর্ঘ সময় অতিবাহিত হওয়ার পর আগামী ১১ অক্টোবর উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। এবার সম্মেলনে কে হচ্ছে আগামী দিনের কর্ণধার? সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক এই নিয়ে চলছে নেতাকর্মী ও আওয়ামী লীগপন্থিদের হিসাব-নিকাশ।

সম্মেলন ঘিরে নেতাকর্মীরা এখন বেশ উজ্জীবিত। চায়ের দোকান, ক্লাব, অফিসপাড়া, দলীয় কার্যালয় থেকে শুরু করে উপজেলার প্রতিটি ইউনিয়নে, আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মী, সমর্থক ও শুভানুধ্যায়ীদের মধ্যে চলছে টান টান উত্তেজনা।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমও চলছে সমর্থকদের ব্যাপক প্রচারণা। সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা তাদের পছন্দের নেতাকে নিয়ে পোস্ট দিচ্ছেন ফেসবুকে। সব মিলিয়ে এক উৎসবমুখর পরিবেশ বিরাজ করছে উপজেলা জুড়ে।

এদিকে সম্মেলনের দিন, সময় যতই এগিয়ে আসছে, দলীয় নেতাকর্মীদের মধ্যে কৌতূহল ও উৎসাহ উদ্দীপনা বৃদ্ধি পাচ্ছে।

সম্মেলন সম্পর্কে একাধিক নেতাকর্মী জানিয়েছেন, ৬ ইউনিয়নের ৫৪ টি ওয়ার্ডের মধ্যে ২৯ টি ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের কাউন্সিল স্থগিত করা হয়েছে। ইতিপূর্বে দুই দফায় ২৫টি ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের কাউন্সিলে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত করা হয়।

কাউন্সিল স্থগিত হওয়া ওয়ার্ডগুলো হল আলোকঝাড়ী ইউনিয়নের ৯টি ওয়ার্ড, ভেড়ভেড়ী ইউনিয়নের ২, ৪, ৫, ৮ ও ৯ নং ওয়ার্ড, আঙ্গারপাড়া ইউনিয়নের ১, ৪, ৬, ৭, ৮ ও ৯ নং ওয়ার্ড, খামারপাড়া ইউনিয়নের ১, ৩, ৪, ৭ ও ৮ নং ওয়ার্ড, ভাবকি ইউনিয়নের ৬ ও ৯ নং ওয়ার্ড এবং গোয়ালডিহি ইউনিয়নের ৫ ও ৬ নং ওয়ার্ড। তবে এর মধ্যে খামারপাড়া ইউনিয়নের ৩ ও ৮ নং ওয়ার্ডে শুধু সভাপতি পদে কাউন্সিল সম্পন্ন হয়। বিভিন্ন কারণে কাউন্সিল স্থগিত ঘোষণা করেন কতৃপক্ষ।

ওয়ার্ড কাউন্সিল শেষ না করেই দেওয়া হচ্ছে উপজেলা ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন। জানা যায় উপজেলা সম্মেলনের পর নবীন ও প্রবীণদের সমন্বয়ে ৬টি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সম্মেলণের দিনখন ঠিক হবে। উপজেলা কমিটিতে, সৎ, যোগ্য, মেধাবী ও দলের দুর্দিনের পরীক্ষিত নেতাকর্মীদের যাচাই-বাছাই শেষে নতুন কমিটিতে নেতারা তাদেরই স্থান দেবেন। যারা আগামী দিনে এ অঞ্চলের জনসাধারণ ও নেতাকর্মীদের পাশে থেকে বিভিন্ন আন্দোলন, সংগ্রামে নেতৃত্ব দেবেন এমনটাই আশা অনেকের।

আসন্ন উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে মাঠপর্যায়ে যাদের নাম শোনা যাচ্ছে সভাপতি পদে উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও ৩নং আঙ্গারপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তফা আহমেদ শাহ্ ও জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি শেখ রফিকুল ইসলাম। সাধারণ সম্পাদক পদে বর্তমান উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সফিউল আযম চৌধুরী লায়ন, পাকেরহাট ডিগ্রী কলেজের সাবেক জিএস ও ৩নং আঙ্গারপাড়া ইউপি’র সাধারণ সম্পাদক ধীমান চন্দ্র দাস, মরহুম আবু হাতেমের পুত্র প্রভাষক আনোয়ার হোসেন রানা এবং প্রমথ চন্দ্র রায়।

সাধারণ নেতাকর্মীদের প্রত্যাশা ত্যাগী ও জনসমর্থন আছে এমন নেতাদের সভাপতি সাধারণ সম্পাদক হিসেবে নির্বাচিত করলে সংগঠন শক্তিশালী হবে। আগামী জাতীয় নির্বাচন ও আন্দোলন সংগ্রামের বিষয় মাথায় রেখে যাতে কমিটির প্রতি বিশেষ দৃষ্টি রাখা হয় সেই আশাবাদ সবার।