সৈয়দপুর ০৩:৫৯ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

রসিক নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শুরু

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০২:৫৮:২৪ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৭ ডিসেম্বর ২০২২ ১৪ বার পড়া হয়েছে
চোখ২৪.নেট অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

রংপুর প্রতিনিধিঃ রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে। মঙ্গলবার সকাল সাড়ে আটটায় এই ভোটগ্রহণ শুরু হয়। চলবে টানা বিকাল সাড়ে চারটা পর্যন্ত।

ইভিএম এ অনুষ্ঠিত হচ্ছে এই ভোট। ২২৯টি কেন্দ্রের সবগুলোতেই ভোটগ্রহণ সিসি ক্যামেরা দিয়ে পর্যবেক্ষণ করছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। এজন্য ১,৮০৭টি সিসি ক্যামেরা স্থাপন করা হয়েছে।

এছাড়াও সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন সম্পন্ন করতে র‌্যাব, বিজিবি, পুলিশ, আনসার নিয়ে চার স্তরের নিরাপত্তাব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। সেই সঙ্গে শান্তিশৃঙ্খলা রক্ষায় ৩৩টি ওয়ার্ডে একজন করে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটসহ ৪৯ জন নির্বাহী ও জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট দায়িত্ব পালন করছেন।

নির্বাচন কমিশনের (ইসি) যুগ্ম সচিব এসএম আসাদুজ্জামান জানিয়েছেন, ভোট পর্যবেক্ষণে সিসি ক্যামেরা স্থাপনসহ মোতায়েন করা হয়েছে বিপুল সংখ্যক আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য। এক্ষেত্রে পুলিশ, আনসার ও ভিডিপির সমন্বয়ে সাধারণ কেন্দ্রে ১৫ জনের এবং ঝুঁকিপূর্ণ ৮৬টি কেন্দ্রে ১৬ জনের ফোর্স মোতায়েন করা হয়েছে। এছাড়া নির্বাহী ও বিচারিক হাকিম নিয়োগ করা হয়েছে ৪৯ জন। এদের মধ্যে নির্বাহী হাকিম ৩৩ জন ও বিচারিক হাকিম রয়েছেন ১৬ জন। তারা ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা ও সংক্ষিপ্ত বিচার কাজ সম্পন্ন করবেন। সেই সঙ্গে র‌্যাব, বিজিবির একাধিক টিম ভোটার এলাকায় রয়েছে ভ্রাম্যমাণ ও স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে।

রংপুর সিটি নির্বাচনে মোট প্রার্থী ২৬০ জন। তাদের মধ্যে মেয়র পদে নয়জন, সাধারণ কাউন্সিলর পদে ১৮৩ জন ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ৬৮ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

মেয়র পদে ৯ প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী হলেন- জাতীয় পার্টির (জাপা) মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা, আওয়ামী লীগের অ্যাডভোকেট হোসনে আরা লুৎফা ডালিয়া, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জাসদ-ইনু) শফিয়ার রহমান, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমিরুজ্জামান পিয়াল, খেলাফত মজলিশের তৌহিদুর রহমান মণ্ডল রাজু, জাকের পার্টির খোরশেদ আলম খোকন, বাংলাদেশ কংগ্রেসের আবু রায়হান এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী মেহেদী হাসান বনি ও লতিফুর রহমান মিলন।

নির্বাচনে দুই লাখ ১২ হাজার ৩০২ জন পুরুষ এবং দুই লাখ ১৪ হাজার ১৬৭ জন নারী ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগের সুযোগ পাচ্ছেন।

২০১৭ সালের ২১ ডিসেম্বর এই সিটিতে সর্বশেষ নির্বাচন হয়েছিল। নির্বাচিত করপোরেশনের প্রথম সভা হয়েছিল ২০১৮ সালের ১৯ ফেব্রুয়ারি। সে মোতাবেক এ সিটির বর্তমান নির্বাচিতদের মেয়াদ শেষ হবে ২০২৩ সালের ১৮ ফেব্রুয়ারি।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য


রসিক নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শুরু

আপডেট সময় : ০২:৫৮:২৪ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৭ ডিসেম্বর ২০২২

রংপুর প্রতিনিধিঃ রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে। মঙ্গলবার সকাল সাড়ে আটটায় এই ভোটগ্রহণ শুরু হয়। চলবে টানা বিকাল সাড়ে চারটা পর্যন্ত।

ইভিএম এ অনুষ্ঠিত হচ্ছে এই ভোট। ২২৯টি কেন্দ্রের সবগুলোতেই ভোটগ্রহণ সিসি ক্যামেরা দিয়ে পর্যবেক্ষণ করছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। এজন্য ১,৮০৭টি সিসি ক্যামেরা স্থাপন করা হয়েছে।

এছাড়াও সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন সম্পন্ন করতে র‌্যাব, বিজিবি, পুলিশ, আনসার নিয়ে চার স্তরের নিরাপত্তাব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। সেই সঙ্গে শান্তিশৃঙ্খলা রক্ষায় ৩৩টি ওয়ার্ডে একজন করে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটসহ ৪৯ জন নির্বাহী ও জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট দায়িত্ব পালন করছেন।

নির্বাচন কমিশনের (ইসি) যুগ্ম সচিব এসএম আসাদুজ্জামান জানিয়েছেন, ভোট পর্যবেক্ষণে সিসি ক্যামেরা স্থাপনসহ মোতায়েন করা হয়েছে বিপুল সংখ্যক আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য। এক্ষেত্রে পুলিশ, আনসার ও ভিডিপির সমন্বয়ে সাধারণ কেন্দ্রে ১৫ জনের এবং ঝুঁকিপূর্ণ ৮৬টি কেন্দ্রে ১৬ জনের ফোর্স মোতায়েন করা হয়েছে। এছাড়া নির্বাহী ও বিচারিক হাকিম নিয়োগ করা হয়েছে ৪৯ জন। এদের মধ্যে নির্বাহী হাকিম ৩৩ জন ও বিচারিক হাকিম রয়েছেন ১৬ জন। তারা ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা ও সংক্ষিপ্ত বিচার কাজ সম্পন্ন করবেন। সেই সঙ্গে র‌্যাব, বিজিবির একাধিক টিম ভোটার এলাকায় রয়েছে ভ্রাম্যমাণ ও স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে।

রংপুর সিটি নির্বাচনে মোট প্রার্থী ২৬০ জন। তাদের মধ্যে মেয়র পদে নয়জন, সাধারণ কাউন্সিলর পদে ১৮৩ জন ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ৬৮ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

মেয়র পদে ৯ প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী হলেন- জাতীয় পার্টির (জাপা) মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা, আওয়ামী লীগের অ্যাডভোকেট হোসনে আরা লুৎফা ডালিয়া, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জাসদ-ইনু) শফিয়ার রহমান, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমিরুজ্জামান পিয়াল, খেলাফত মজলিশের তৌহিদুর রহমান মণ্ডল রাজু, জাকের পার্টির খোরশেদ আলম খোকন, বাংলাদেশ কংগ্রেসের আবু রায়হান এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী মেহেদী হাসান বনি ও লতিফুর রহমান মিলন।

নির্বাচনে দুই লাখ ১২ হাজার ৩০২ জন পুরুষ এবং দুই লাখ ১৪ হাজার ১৬৭ জন নারী ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগের সুযোগ পাচ্ছেন।

২০১৭ সালের ২১ ডিসেম্বর এই সিটিতে সর্বশেষ নির্বাচন হয়েছিল। নির্বাচিত করপোরেশনের প্রথম সভা হয়েছিল ২০১৮ সালের ১৯ ফেব্রুয়ারি। সে মোতাবেক এ সিটির বর্তমান নির্বাচিতদের মেয়াদ শেষ হবে ২০২৩ সালের ১৮ ফেব্রুয়ারি।